বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:০৪ পূর্বাহ্ন
টপ নিউজ
সাধারন জনগনের অভিমত দিরাই পৌর নির্বাচনে ৯নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে শরীফের বিকল্প নেই ত্রিমুখী রাস্তায় গতিরোধক স্থাপন সকলের প্রাণের দাবী চকরিয়ায় ট্রাক ও ইজিবাইকের সংঘর্ষে এক পথচারী নিহত চকরিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সভা সম্পন্ন সুনামগঞ্জের শাল্লায় চোরের উপর মামলা করায় হুমকি মুখে দিনমজুরের পরিবার পেকুয়ায় মোটর সাইকেল চালককে কুপিয়ে জখম পেকুয়ায় কোর্টের আদেশ বিলম্বিত-উদ্ধার হয়নি অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রী পেকুয়া বাজারের পূর্ব পার্শ্বে বন বিভাগের অনুমতিবিহীন ফিশিং ট্রলার নির্মাণ চলছে! সুনামগঞ্জের বিভিন্ন অঞ্চলে দাদন ব্যবসায়ীদের চড়াসুদে পথে বসেছেন অনেক অসহায় পরিবার কক্সবাজারের পুলিশ সুপারকে রাজশাহীতে বদলি,হাসানুজ্জামান নতুন এসপি

আজ ভয়াল ২৯ এপ্রিল

Reporter Name
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৫৪ দেখুন

আবদুল করিম বিটু//আজ ভয়াল ২৯ শে এপ্রিল। ১৯৯১ সালের এই দিনে ‘ম্যারি এন’ নামক ভয়াবহ প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছিল চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলীয় এলাকার বিস্তৃর্ণ জনপদ। কক্সবাজারের আকাশ বাতাস ভারি
হয়ে গিয়েছিল লাসের গন্ধে। লাশের পরে লাশ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে ছিল চারদিকে। বিস্তীর্ণ অঞ্চল ধ্বংস্তূপে পরিণত হয়েছিল।
ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল মানুষের ঘর-বাড়ি, রাস্তা-ঘাট, দালান-কোঠো ইত্যাদি। যার ভয়াল
ছোঁবল থেকে মানুষ ছাড়াও বাঁচতে পারেনি গবাদি পশু,পাখি, গাছপালা ইত্যাদি।

জান-মালের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয় এদিনে। দেশের মানুষ বাকরুদ্ধ হয়ে সেদিন প্রত্যক্ষ করেছিল প্রকৃতির করুণ এই আঘাত। প্রাকৃতিক দূর্যোগের এতবড় অভিজ্ঞতার মুখোমুখি এদেশের মানুষ এর আগে আর কখনো হয়নি । পরদিন বিশ্ববাসী অবাক হয়ে গিয়েছিল সেই ধ্বংসলীলা দেখে। কেঁপে উঠেছিল বিশ্ব বিবেক।

বাংলাদেশে আঘাত হানা ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ে নিহতের সংখ্যা বিচারে পৃথিবীর ভয়াবহতম ঘূর্ণিঝড় গুলোর মধ্যে অন্যতম। ১৯৯১ সালের ২৯শে এপ্রিল সোমবার রাতে বাংলাদেশে-র দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত চট্টগ্রাম উপকূলে আঘাত হানা এই ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়টিতে বাতাসের সর্বোচ্ছ গতিবেগ ছিল ঘন্টায় প্রায় ২৫০ কিমি (১৫৫ মাইল/ঘন্টা)। ঘূর্ণিঝড় এবং তার প্রভাবে সৃষ্ট ৬ মিটার (২০ ফুট) উঁচু জলোচ্ছ্বাসে আনুমানিক
সরকারি হিসাবে নিহতের সংখ্যা ১ লাখ ৩৮ হাজার ২৪২ জন এবং প্রায় এক কোটি মানুষ আশ্রয়হীন হয়।

গড়ে পৃথিবীতে প্রতি বছর প্রায় ৮০ টি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হয়। এর অধিকাংশই সমুদ্রে মিলিয়ে যায়, কিন্তু যে অল্প সংখ্যক ঘূর্ণিঝর উপকূলে আঘাত হানে ভয়াবহ ক্ষতি সাধন করে তার একটি ১৯৯১ সালের ঘুর্ণিঝর ম্যারি এন।

বাংলাদেশ তথা উত্তর ভারত মহাসাগর এলাকায় ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করা হয় না।
তার পরিবর্তে, আরব সাগর এলাকায় উৎপন্ন ঝড়গুলোকে A এবং বঙ্গোপসাগরে উৎপন্ন ঝড়গুলোকে B অক্ষর দিয়ে চিহ্নিত করা হয়। ১৯৯১ সালের ২৯ শে এপ্রিল যে ঘূর্ণিঝড় বাংলাদেশে আঘাত
হেনেছিল তার পরিচয় TC-02B হিসেবে, তার মানে এটি ছিল ১৯৯১ সালে বঙ্গোপসাগরে উৎপন্ন দ্বিতীয় ঘূর্ণিঝড়। ।

ক্ষতি হয়েছিল প্রায় ৫
হাজার কোটি টাকারও বেশি সম্পদ। প্রলয়ঙ্করি এই ধ্বংসযজ্ঞের ২৯ বছর
পার হতে চলেছে। এখনো স্বজন হারাদের আর্তনাদ থামেনি।
উপকূলবাসী আজও ভুলতে পারেনি সেই রাতের দুঃসহ স্মৃতি।
সাগরে কোনো লঘুচাপ, নিম্নচাপ কিংবা মেঘ দেখলেই আতঙ্কে চমকে
ওঠেন উপকূলবাসী। ৯১-এর ঘূর্ণিঝড়ের পর ২৯ বছর পেরিয়ে
গেলেও উপকূলীয় এলাকায় বাঁধসমূহ বর্তমানে ঝুঁকিপূর্ণ।

আজ ভয়াল ২৯ এপ্রিল

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর

Design & Develop BY Our BD It
© Copyright 2019 All rights reserved BBC Morning
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102